• আজকের পত্রিকা
  • ই-পেপার
  • আর্কাইভ
  • কনভার্টার
  • অ্যাপস
  • ভারতীয় কাশির সিরাপ পানে গাম্বিয়ায় শিশু মৃত্যু 

     obak 
    07th Oct 2022 1:42 pm  |  অনলাইন সংস্করণ

    আন্তর্জাতিক ডেস্ক :ভারতের তৈরি কাশির সিরাপ পানে গাম্বিয়ার ৬৬ শিশুর মৃত্যুর পর বিশ্বজুড়ে সতর্কতা জারি করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)। সংস্থাটির বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, কাশির এই সিরাপের কারণে কিডনি বিকল হয়ে ৬৬ শিশুর মৃত্যু হয়েছে। ভারতের সেন্ট্রাল ড্রাফ স্ট্যান্ডার্ড কন্ট্রোল অর্গানাইজেশন হু-কে নিশ্চিত করেছে গাম্বিয়াতেই এই সিরাপ রফতানি করা হয়েছে। তবে হু-র আশঙ্কা, বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়তে পারে এই সিরাপের উপাদানগুলো।

    বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আরও জানিয়েছে, ভারতের মেইডেইন ফার্মাসিউটিক্যালস সিরাপটি তৈরি করেছে। তারা ওষুধটির পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার বিষয়ে কোনো ধরনের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হয়েছে। বিবিসি মেইডেইন ফার্মাসিউটিক্যালসকে এ বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলেও কোনো উত্তর দেয়নি তারা। এদিকে এই সিরাপ পানে মৃত্যু সংক্রান্ত নথি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কাছ থেকে চাওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় সরকারি কর্তৃপক্ষ।

    বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বিবিসিকে জানিয়েছে, যে চারটি সিরাপের কারণে শিশুমৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে, সেগুলো হচ্ছে: প্রমাথাইজিন ওরাল সলুশন, কফিক্সমালিন বেবি কফ সিরাপ, ম্যাকফ বেবি কফ সিরাপ ও ম্যাগরিপ এন কোল্ড সিরাপ। সতর্কতা জারি করে হু জানিয়েছে, এই চারটি কাশির সিরাপ শুধু গাম্বিয়ায় নয়, চোরাই মার্কেটসহ বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে পড়েছে। এতে যেকোনো সময় মারাত্মক পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছে তারা।
     

    গাম্বিয়ায় জুলাইয়ের শেষের দিকে পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুদের মধ্যে তীব্র কিডনি জটিলতা সংক্রান্ত মৃত্যুর রেকর্ড পরিমাণ বৃদ্ধি পায়। এর পরেই গাম্বিয়ার সরকার সমস্ত প্যারাসিটামল সিরাপ ব্যবহার স্থগিত করে এবং এর পরিবর্তে ট্যাবলেট ব্যবহার করার জন্য জনগণকে অনুরোধ করে। নিষেধাজ্ঞার পর থেকে মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে, তবে গত দুই সপ্তাহে আরও দুটি মৃত্যুর রেকর্ড পাওয়া গেছে বলে বিবিসিকে জানিয়েছেন গাম্বিয়ার স্বাস্থ্য পরিষেবার পরিচালক মুস্তাফা বিট্টে। তিনি জানিয়েছেন, এই সিরাপ গ্রহণের ফলে পেটে ব্যথা, বমি, ডায়রিয়া এবং কিডনি জটিলতায় মৃত্যুর উদাহরণ তারা পেয়েছেন। তিনি আরও জানিয়েছেন, এই সিরাপে শিশুদেহের জন্য ক্ষতিকারক মারাত্মক ব্যাকটেরিয়া ই.কোলির উপস্থিতির প্রমাণও তারা পেয়েছেন।
     
    এদিকে বুধবার জেনেভায় গাম্বিয়ার স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গত মাসেও অনেক শিশু মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। তবে প্রকৃত সংখ্যা তারা জানাতে পারেননি। এদিকে এমন ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে হু-র প্রধান তেদ্রোস আধানম শোক জানিয়ে বলেন, এই শিশুমৃত্যুর ঘটনা অত্যন্ত হৃদয়বিদারক এবং তাদের পরিবারের জন্য অত্যন্ত কষ্টের। 

    We use all content from others website just for demo purpose. We suggest to remove all content after building your demo website. And Dont copy our content without our permission.
    আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
    Jugantor Logo
    ফজর ৪:২৭
    জোহর ১২:০৫
    আসর ৪:২৯
    মাগরিব ৬:২০
    ইশা ৭:৩৫
    সূর্যাস্ত: ৬:২০ সূর্যোদয় : ৫:৪২

    আর্কাইভ

    October 2022
    M T W T F S S
     12
    3456789
    10111213141516
    17181920212223
    24252627282930
    31